এমন পরিবর্তন চান না পাপন!

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) ওয়ানডে সুপার লিগ শুরু করেছে বাংলাদেশ। সিরিজের টানা দুই ম্যাচ জিতে বিশ্বকাপের বাছাইয়ের এই লিগে ইতোমধ্যেই শুভ সূচনা করেছে টাইগাররা।

আর এই কারণেই সিরিজের গুরুত্ব মা'থায় রেখে শেষ ম্যাচে প্রতিপক্ষকে সমীহের চোখে দেখেই একাদশে পরিবর্তনের কথা ভাবছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানোডে জয়ের মধ্য দিয়ে টানা সাত ম্যাচে জয়ের চক্র পুর্ণ করেছে তামিম ইকবালরা। আর তাই অনেকটা স্বস্তি নিয়ে শেষ ওয়ানডেতে খেলতে নামবে বাংলাদেশ।

সিরিজ নিশ্চিত করায় তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে অনুমিতভাবেই বেঞ্চের শক্তি বাজিয়ে দেখতে চাইবে টিম ম্যানেজম্যান্ট। প্রথম দুই ম্যাচে দলে জায়গা না পাওয়া ক্রিকেটারদের সুযোগ দেয়ার পক্ষে অধিনায়ক তামিমও। একাদশে পরিবর্তনের পক্ষে বিসিবি বস পাপনও। তবে দলের ওপর প্রভাব পড়বে এমন পরিবর্তন চান না তিনি। কারণ সিরিজটি ওয়ানডে লিগের অন্তর্ভুক্ত। লিগের প্রতি ম্যাচ জয়ের জন্যই ১০ পয়েন্ট করে জমা হবে। অ'পরপক্ষে হারলে ফিরতে হবে শূন্য হাতে।

‘একাদশে পরিবর্তন আসতেই পারে কিন্তু এমন কোন পরিবর্তন আনতে চাই না যেন কোন কাউকে আন্ডারএস্টিমেট করার কোন কারণ নেই। একটা জিনিস মনে রাখতে হবে এই খেলাটা দিয়েই আমাদের শুরু হলো ওডিআই চ্যাম্পিয়নশীপ। দুটো ম্যাচ জিতে কিন্তু আম'রা ২০ পয়েন্ট পেয়েছি । একেকটা ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

কোনো দলকেই খাটো করে দেখার সুযোগ নেই। তা না হলে ভবিষ্যতে গিয়ে আমাদের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ খেলতে গেলে বা ওডিআই চ্যাম্পিয়নশীপ খেলতে গেলে, বিশ্বকাপ খেলতে গেলে আমাদের অ'সুবিধা হবে। সে কারণে আম'রা প্রথম থেকেই প্রত্যেকটা খেলাই গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছি,’ তিনি যোগ করেন।

সরাসরি বিশ্বকাপ খেলতে বাংলাদেশকেও বাছাই পর্বের সেরা ৮ দলে জায়গা করে নিতে হবে। আটটি সিরিজের বাছাই পর্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড ও আ'ফগা'নিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে খেলবে তারা। আর বিদেশের মাটিতে দলের চারটি সিরিজ নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে।

সর্বমোট আটটি সিরিজের ২৪টি ম্যাচের মধ্যে কমপক্ষে ১৭টি ম্যাচ জিততে হবে বাংলাদেশকে। পয়েন্টের হিসাবে ২৪০ এর মধ্যে ১৭০ পয়েন্ট পেলেই সরাসরি ২০২৩ বিশ্বকাপ খেলতে পারবেন সাকিব, মুশফিকরা। ঘরের মাঠে শক্তিশালী হলেও বিদেশের মাটিতে টাইগারদের রেকর্ড আশাব্যঞ্জক নয়। এই কারণেই দেশের সিরিজের পয়েন্টের দিকে সর্বোচ্চ নজর বিসিবি বসের।

পাপন আরও বলেন, ‘এটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ এই কারণে সামনের সিরিজগুলো শক্তিশালী দেশগুলোর সঙ্গে বাইরে খেলা। আম'রা সাধারণত বাংলাদেশে ভা'রত, পা'কিস্তান, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে শুরু করে প্রায় সবাইকে হারিয়েছি কিন্তু তাদের দেশে গিয়ে ভালো জয় পাইনি। সিরিজ জিতেছি মাত্র দুটো। সেদিক দিয়ে চিন্তা করেলে এটি অ'ত্যন্ত কঠিন প্রত্যেকটা খেলা অ'ত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নিতে হবে এবং অবশ্যই জিততে হবে।’

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টানা ২ ম্যাচ জিতে ইতোমধ্যেই তিন ম্যাচের সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান- মুশফিকুর রহিম'রা। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধবলধলাইয়ের মিশনে ২৫ জানুয়ারি চট্টগ্রামের সাগরিকায় মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

Back to top button