এই প্রাকৃতিক উপাদানেই হবে বাজিমাত! শীতে ফাটবে না ত্বক, থাকবে নরম ও উজ্জ্বল

বাজারচলতি ময়শ্চারাইজারের উপর ভরসা করতে গেলে অনেক সময়ই ত্বকের ক্ষতি হয়। শীতে রূপচর্চার জন্যে খুব উপকারী এই প্রাকৃতিক উপাদান। কী' কী' উপকার মিলতে পারে এর থেকে? জেনে নিন…

শীতে ত্বককে নরম রাখতে ব্যবহার করুন। এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: শীতকালে ত্বকের অনেক বেশি যত্ন নিতে‌ হয়। শীতে রূপচর্চার জন্যে খুব উপকারী এই প্রাকৃতিক উপাদান। যা সরাসরি কিংবা ফেস প্যাকের সঙ্গে মিশিয়েও ব্যবহার করা যায়।বাজারচলতি ময়শ্চারাইজারের উপর ভরসা করতে গেলে অনেক সময়ই ত্বকের ক্ষতি হয়। এ ছাড়া অনেকরই প্রোডাক্ট ব্যবহারের পর র্যাশ হয়ে যায় ত্বকে। তাই প্রচলিত ক্রিমে মিশে থাকা রাসায়নিক এড়াতে পছন্দ করেন অনেকেই।

এ ক্ষেত্রে ভরসা হতে পারে প্রাকৃতিক উপাদান গ্লিসারিন। এর প্রভাবে আপনার ত্বকের সমস্যাগু'লি কমাতে সাহায্য করে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই। বর্ণহীন ও গন্ধহীন এই তরল আদতে উদ্ভিদ থেকে মেলে। গ্লিসারিনের প্রভাবে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই কমতে পারে ত্বকের নানা সমস্যা।শীত এলে বিভিন্ন প্রসাধনী সংস্থা নিজস্ব ব্যানারে গ্লিসারিন মিশ্রিত নানা প্রসাধনীই বাজারজাত করে। তবে সেখানেও ভ'য় থাকে রাসায়নিকের। তাই ত্বকের যত্ন নিতে এই সব রাসায়নিকবিহীন খাঁটি গ্লিসারিন ব্যবহার করুন। কী' কী' উপকার মিলতে পারে এই গ্লিসারিন থেকে? জেনে নিন-

ক্লিনজিং করতে খুবই ভালো-গ্লিসারিন ত্বকের ওপর থেকে ময়লা পরিষ্কার করতে অর্থাৎ ত্বক ক্লিনজিং করতে খুবই ভালো। গো'লাপ জলের সঙ্গে অল্প পরিমাণ গ্লিসারিন মিশিয়ে ত্বক পরিষ্কার করুন। এটা নিয়মিত রাতে শোয়ার আগে করলে ত্বক পরিষ্কার থাকে ও বন্ধ কোষগু'লি পুনরায় খোলে।বিশেষজ্ঞদের মতে, মুখে জমে থাকা তেল, ধুলো-ময়লা দূর করতে বাড়ি ফিরে গ্লিসারিন ব্যবহার করে ধুয়ে নিন মুখ। গভীর ভাবে ত্বক পরিষ্কার করার ক্ষমতা আছে গ্লিসারিনের। ক্লিনজিং মিল্কের পরিবর্তে এই উপাদানেই দূর করতে পারেন মুখের যাবতীয় ক্লেদ।

ত্বককে আর্দ্র রাখে-ত্বকের পুষ্টি জোগাতে গ্লিসারিনের জুড়ি মেলা ভা'র। সেজন্যেই যে কোনও প্রসাধনীতে গ্লিসারিন ব্যবহার করা হয়। তবে উপকার আরও বেশি পেতে নিয়মিত ময়েশ্চারাইজারের সঙ্গে গ্লিসারিন মিশিয়ে ব্যবহার করুন। ত্বক থেকে জলকে সহ'জে সরে যেতে দেয় না গ্লিসারিন। ত্বকের কোষে জল ধরে রেখে ত্বককে আর্দ্র রাখে।কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই-এছাড়াও ফেস প্যাকে গ্লিসারিন যোগ করতে পারেন। এর ফলে ত্বক পর্যাপ্ত পুষ্টি পায়। ফলস্বরূপ ত্বক কোমল থাকে। এর কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তাই বিভিন্ন ধরনের ত্বকের ক্ষেত্রেই এটি বিশেষ কার্যকর। ত্বকের ছোটখাটো সমস্যা, ফুসকুড়ি বা জ্বালাভাব কমাতে গ্লিসারিন কাজে আসে।

ব্রণ কমাতে সাহায্য করে-ব্রণ কমাতেও সাহায্য করে গ্লিসারিন। মুখে ব্রণর জায়গায় অল্প তুলোয় করে গো'লাপ জল ও গ্লিসারিন মিশিয়ে লাগিয়ে নিন। এতে শুধু নতুন ব্রণ কমবে না। ধীরে ধীরে পুরনো ব্রণের দাগও উঠে যাবে।কমলতা ফিরিয়ে আনে-রুক্ষ ও খসখসে ত্বকের চিকিৎসায় বেশির ওষুধে গ্লিসারিন ব্যবহার করা হয়। ঠান্ডা, দূষণ ও আরও অন্যান্য কারণে ত্বক কমলতা নষ্ট হয়ে যায়। এই সময় গ্লিসারিন ব্যবহার করলে রোগ নির্মূল হয়ে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে স্বাস্থ্যবান।

Back to top button