শুভ কাজে যাওয়ার আগে করুন এই কাজ আসবে সাফল্য

আম'রা সাধারনত মনে করি যে শুভ কাজ শুভ ক্ষণেই করা উচিত, কিন্তু জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুযায়ী শুভ কাজের সাথে তার অনুকুল সময় স্থাপনের ব্যাখ্যা বড়ই জটিল, বহু ঋষি মুনিরা যেভাবে দিনের পর দিন একই জায়গায় বসে সাধনা করে যা জ্ঞান উপলব্ধি করেছেন

তার ভিত্তিতে দাঁড়িয়ে আম'রা সাধারনত এই শুভ কাজ গুলোর একটা পরিমাপ করে উঠতে পারি। যেমন ধরুন কেউ মাংস কাটে। এটা তার জীবিকা, কিন্তু অনেকের চোখে এটা বড় পাপ, কারন এটি একটা প্রা'ণী হ'ত্যা। আবার কিছু কিছু বিষয়ের জন্য, যেমন ধরুন কন্যার বিবাহের জন্য পিতা আথবা জুয়া বা ফাট'কা বাজিতে লাভ হবে কিনা তা জানতে জ্যোতিষের দ্বারস্থ হন।

অর্থাত্‍ এইটুকু অন্তত পরিস্কার যে, মানুষ যে কাজটি তার উদ্দ্যেশ্য সাধনের জন্য করে তার কাছে সেটাই শুভ কাজ। কিন্তু শুভ কাজে বেরনর আগে আমাদের কিছু নিয়ম কানুন মেনে চলা উচিত যাতে সেই কাজে সাফল্য পাওয়া যায়, চলুন তবে জেনে নি সেই সমস্ত কাজ যা থেকে সাফল্ল্য নিশ্চিত –

প্রতিদিন বিছানায় যাবার আগে ইস্ট দেব দেবী, গুরু বা যিনি যে ঠাকুরকে বিশ্বা'স করেন তার কাছে নিজেকে সম্পূর্ণ সম'র্পণ করে দেওয়া উচিত। অর্থাত্‍ রাতে শুতে যাওয়ার আগে মন দিয়ে ঈশ্বরের নাম করুন এবং তার কাছে মনস্কামনা জানান।

শুধু শুতে যাবার আগেই নয়, ঘুম থেকে উঠেও শুরুতে ঈশ্বরকে প্রনাম করুন। এরপর সূর্যদেবকে প্রনাম করুন, তারপর স্নান করে গুরু বা ঠাকুরকে প্রনাম করুন এবং তারপর বাবা মা ও বাড়ির বাকি গুরুজনদের প্রনাম করুন, ফলে দিনটি শুভ যায়।

এছাড়া কয়েকটি কাজ আছে যা শুভ কাজে যাওয়ার আগে করলে সাফল্য পাওয়া যায়। শুভ কাজে যাওয়ার আগে সাদা চন্দনের তিলক পরে যান। যদি নিজের রাশি জানা থাকে তবে সেই রঙের বস্ত্র পরিধান করুন, শুভ কাজে দেরি নেই।

শুভ কাজে যাওয়ার আগে জ্যান্ত মাছ দেখে যাওয়া নাকি খুবই শুভ হয়, শুভ ফলও পাওয়া যায়। বেরনর আগে একটি জলপূর্ণ ঘটি দেখে বেরনো খুবই ফলপ্রদ হয়। তাছাড়া মুখে দই ও চিনি দিয়ে বেরনো আসন্ন কাজকে শুভ করে।

Back to top button