১৪ বছরেই গ্র্যাজুয়েট! কনিষ্ঠতম স্নাতক অগস্ত্য লেখে দু-হাতেই

৯ বছর বয়সে মাধ্যমিক। ১১ বছরে উচ্চ'মাধ্যমিক। ১৪ বছরে স্নাতক। এমনই কৃতিত্ব গড়ে হায়দরাবাদের অগস্ত্য জয়সওয়ালেরদা’বি, ভা'রত প্রথম ছাত্র হিসাবে এত কম বয়সে স্নাতক হল সে।

হায়দরাবাদের ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং জার্নালিজমে স্নাতক ডিগ্রি পেয়ছে অগস্ত্য। ছোট থেকেই মেধাবী সে। দশম স্তরের পরীক্ষায় তার জিপিএ ছিল ৭.৫। আর দ্বাদশ স্তরের পরীক্ষায় সে ৬৩ শতাংশ নম্বর পেয়েছিল বলে অগস্ত্য নিজেই জানিয়েছে এক সংবাদ সংস্থাকে। পড়াশোনার পাশাপাশি জাতীয় স্তরের টেবিল টেনিস খেলোয়াড় সে।

বড় হয়ে ডাক্তারি পড়তে চাওয়া অগস্ত্য জানিয়েছে, ‘‘আমা'র বাবা, মা-ই আমা'র শিক্ষক। তাঁদের সাহায্যেই আমি সমস্ত বাধা অ'তিক্রম করেছি। আমি ১.৭২ সেকেন্ডে ‘এ’ থেকে ‘জেড’ লিখতে পারি। ১০০ পর্যন্ত নামতা আমা'র মুখস্থ। ২ হাতে লেখার পাশাপাশি আমি মোটিভেশনাল বক্তা।’’ অগস্ত্যর এই সাফল্যে খুশি তার বাবা-মা।

তার বাবা অশ্বিনী কুমা'র জয়সওয়াল বলেছেন, ‘‘প্রত্যেক শি'শুর মধ্যে বিশেষ ক্ষমতা থাকে। তাই বাবা-মায়েরা ছোটবেলা থেকে যত্ন নিলে শি'শুরা ইতিহাস গড়তে পারে।’’মা ভাগ্যলক্ষ্মী বলেছেন, ‘‘আম'রা সবসময় ওকে যে কোনও বিষয় ঠিকঠাক বোঝার কথা বলতাম। ও সব সময় প্রশ্ন করত। আম'রা সেই প্রশ্নের জবাব দেওয়ার চেষ্টা করতাম।’’

Back to top button