নয়া ধামাকা নিয়ে ফিরছেন ডিপজল

বরের বেশে ঢাকাই ছবির খল অ'ভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। আর পাশেই বধূ বেশে এ প্রজন্মের সম্ভাবনাময়ী চিত্রনায়িকা মৌ খান। অ'বাক করা ব্যাপার, তবে কী' সত্যিই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন ডিপজল-মৌ!না, একদমই না। তারা বিয়ের পিঁড়িতে বসলেও এটি সত্যিকারের বিয়ে নয়।

মানুষ কেন অমানুষ ছবিতে ডিপজল-মৌয়ের এই বিয়ে দেখবেন দর্শক। বর্তমানে সাভা'রে ডিপজলের বাড়িতে ছবিটির শুটিং চলছে। ১৮ জানুয়ারি এই বিয়ের দৃশ্যধারণের শুটিং হয়। ডিপজল-মৌয়ের বিয়ের দৃশ্যের কিছু স্থিরচিত্র নায়িকা নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন।

ডিপজল-মৌয়ের বয়সের ব্যবধান বেশ। দর্শক এই বিয়ে কী'ভাবে নেবেন? বিষয়টি নিয়ে মৌ বলেন- এই ছবির গল্পই হলো হিরো। আমা'র দৃঢ় বিশ্বা'স
দর্শক ছবিটি খুব পছন্দ করবেন।

ছবিতে নিজের চরিত্র নিয়ে প্রতিশোধের আ'গুন খ্যাত নায়িকা বলেন, গল্পে আমি ধনী পরিবারের মে'য়ে। তবে খুব সাধারণ জীবনযাপন পছন্দ করি। ফলে বিলাসিতায় গা না ভাসিয়ে গ্রামের একটি স্কুলে চাকরি নেই। শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়ার প্রয়াসে কাজ করতে থাকি। সমাজের জন্য কিছু করার প্রয়াস থাকে।বিয়ের প্রসঙ্গে মৌ খান আরো বলেন, ছবিটি ত্রিভুজ প্রে'মের গল্পের। ঘটনার এক পর্যায়ে ডিপজল ভাইয়ের সঙ্গে আমা'র ভালোবাসা ও বিয়ে হয়।

কিন্তু…? থামিয়ে দিয়ে মৌ বলেন, দেখু'ন এই ছবির গল্পটাই ভিন্ন। ডিপজল ভাইয়ের সঙ্গে বয়সের যে ব্যবধান এটা মোটেও দর্শকের খা'রাপ লাগবে না। আমি নিজেই ইমপ্রেস গল্প শুনে। ভালোবাসা তো বয়স দিয়ে হয় না। বয়স আসলে ফ্যাক্টর না। আম'রা প্রতিবেশী দেশসহ বাইরের দেশের অনেক ছবির উদাহ'রণ দিতে পারি। তবে কোনো এক অজানা কারণে আমাদের দেশে এধরনের গল্পের ছবি হয় না।

তিনি বলেন, ডিপজল ভাইয়ের ছবি মানেই দর্শকের বাড়তি আগ্রহ। ছবিটির প্রযোজক হিসেবেও আছেন তিনি। আর পরিচালনা করছেন মনতাজুর রহমান আকবর সাহেবের মতো গুণী নির্মাতা। আমা'র বিপরীতে আরো দেখা মিলবে চিত্রনায়ক জয় চৌধুরীর।

Back to top button