এ যেন এক অন্যরকম মেহ'জাবীন

সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত হবার উপক্রম। ঢাকার আকাশে তখন শীতের আবছা হওয়া। একটু একটু করে রাত বাড়তেই শীতের হাওয়া যেন বাড়তে শুরু করলো। রাজধানীতে তখন শীতের তাপমাত্রা ১৮ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এমনই এক ঠান্ডার কনকনে হাওয়ায় উত্তরার একটি রিক্সা গ্যারেজের পাশে মৃদু হয়ে বসে থাকতে দেখা গেলো ছোট পর্দার সুপারস্টার মেহ'জাবীন চৌধুরীকে। তবে প্রথম দেখাতে তাকে সেই চিরচেনা লাক্স সুপারস্টারের মত সুন্দরী অবয়বে দেখা যায়নি। কারণ, গল্পের চরিত্রানুযায়ী একদম সাধারণ মে'য়ের সাজে সেজেছিলেন তিনি।

কালো মুখায়াবে ছোট ছোট দাগ! পরনে পাতলা কম'দামী শাড়ি! হাতে স্ক্রিপ্ট নিয়ে দৃশ্যের পর্যালোচনা করছেন। পাশে অনেকজন লোক জট বেঁধে আ'গুনে শীত পোহালেও মেহ'জাবীনকে দেখা গেলো স্ক্রিপ্টেই মনযোগ দিতে। এমনই সময় পরিচালকের ডাকে ফিরে গেলেন ক্যামেরার সামনে।

দৃশ্যধারণ শেষ করে এসে তিনি জানালেন, আসছে ভালোবাসা দিবসকে ঘিরে নির্মিতব্য একটি নাট'কের শুটিং করছেন। নাট'কের নাম ‘শুকু’র সুখ’। যেখানে তাকে দেখা যাবে কাজের মে'য়ের চরিত্রে। তার স্বামী একজন রিক্সাচালক। তাদের জীবনে হঠাৎ করে ঘটে যাওয়া এক দুর্ঘ'টনা তাদেরকে দুমড়ে মুচড়ে দেয়। সেটি কাটিয়ে উঠতে গিয়ে কতরকম পরিস্থিতির শিকার হতে হয়, এমনই এক গল্প দেখা যাবে নাট'কটিতে।

মেহ'জাবীন চৌধুরী বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আমি যেমন গল্পে কাজ করতে মুখিয়ে থাকি, এটা ঠিক সেরকমই। যার কারণে গল্প শুনেই কাজটি করতে রাজি হই। এই নির্মাতার সঙ্গে এটিই আমা'র প্রথম কাজ। ভালোবাসা দিবসকে ঘিরে অনেক রোমান্টিক গল্পেই আম'রা কাজ করে থাকি, এই গল্পটিও ভালোবাসার তবে সেটি একটি কাজের মে'য়ে ও রিক্সাচালকের ভালোবাসার গল্প। তাদের জীবনে ঘটে যাওয়া নানান দুর্ঘ'টনার গল্প।

তিনি আরও বলেন, আমি যেমন বিনোদনমূলক গল্পেও কাজ করি তেমনি বাস্তববাদী গল্পেও। তবে বাস্তববাদী গল্পে বিভিন্নভাবে বিভিন্ন চরিত্রে নিজেকে মেলে ধ'রা যায়। যার কারণে এই জায়গাটা আমা'র ভীষণ পছন্দের। গল্পের চরিত্র অনুযায়ী আমা'র যা করতে হয়, আমি সেটাই করার চেষ্টা করি। কাজটি নিয়ে আমি অনেক বেশি আশাবাদী।

Back to top button