নায়ক জাফর ইকবালের কবর নিয়ে আক্ষেপ ববিতার

সত্তরের দশকে বাংলা সিনেমায় সাড়াজাগানো নায়ক ছিলেন জাফর ইকবাল। সে সময় দর্শকদের মনে আলাদাভাবে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। আজ ৮ জানুয়ারি নায়ক জাফর ইকবালের মৃ'ত্যুবার্ষিকী'। ১৯৯২ সালের এইদিনে তিনি পরপারে পাড়ি জমান।

মৃ'ত্যুর প্রায় তিন দশক পরে এসেও বাংলা সিনেমায় সাড়া জাগানো এই নায়কের আবেদন হারায়নি। তবে এই তারকার কবরটি অন্য সবার সঙ্গে রয়েছে আজিমপুর কবরস্থানে। এ নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন তারসঙ্গে জুটি হয়ে বহু সিনেমায় অ'ভিনয় করা আরেক তারকা অ'ভিনেত্রী ববিতা।

অ'ভিনেত্রী ববিতা বলেন, ‘জাফর ইকবাল ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, নামী নায়ক। কিন্তু তার স্থান হয়েছে আজিমপুরে। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাকে ভালো কোনো স্থানে কবর দিলে ভালো হতো। কেন দেয়া হয়নি জানি না। এই বিষয়গুলো নিয়ে মন খা'রাপ হয়। তার কথা খুব মনে পড়ে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জাফর ইকবাল খুব ভালো ইংরেজি গান গাইতে পারতেন। গিটার বাজিয়ে ওর মুখে ইংলিশ গান শোনাটা আমাদের সময়কার যেকোনো মে'য়ের জন্য স্বপ্নের একটি মুহূর্ত। ওর মতো পরিপূর্ণ কোনো নায়ক আমাদের চলচ্চিত্রে আসেনি।’

প্রায় ১৫০টি চলচ্চিত্রে অ'ভিনয় করেছেন জাফর ইকবাল। এর মধ্যে ববিতার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন ৩০টিতে। তার অ'ভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমা'র মধ্যে রয়েছে, ‘অবুঝ হৃদয়’, ‘ভাই বন্ধু’, ‘অবদান’, ‘প্রে'মিক’, ‘সাধারণ মে'য়ে’, ‘ফকির মজনু শাহ’, ‘দিনের পর দিন’, ‘বেদ্বীন’, ‘অংশীদার’, ‘মেঘ বিজলী বাদল’, ‘

নয়নের আলো’, ‘সাত রাজার ধন’, ‘আশীর্বাদ’, ‘অ'পমান’, ‘এক মুঠো ভাত’, ‘গৃহলক্ষ্মী’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘প্রে'মিক’, ‘নবাব’, ‘প্রতিরোধ’, ‘ফুলের মালা’, ‘সিআইডি’, ‘ম'র্যাদা’, ‘সন্ধি’, ‘বন্ধু আমা'র’, ‘উসিলা’ ইত্যাদি।আশির দশকে ‘কেন তুমি কাঁদালে’ শিরোনামে তার একটি অডিও অ্যালবামও প্রকাশিত হয়েছিল।

Back to top button