নাট’কের শুরুতে হয়েছিল বিয়ে, শেষ হতেই ডিভোর্স: আবেগাপ্লুত ফারিয়া

মুহাম্ম’দ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাট’ক ‘ফ্যামিলি ক্রাইসিস’। এ নাট’কে রায়হান চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন শামীম হাসান সরকার। আর তার বোনের চরিত্রে অ’ভিনয় শবনম ফারিয়া।

পারিবারিক গল্পের নাট’কটির সঙ্গে দ্রুত দর্শক একটি স’ম্পর্ক তৈরি করে ফেলেছেন। একটি বন্ধন তৈরি হয়েছে অ’ভিনয়শিল্পী ও টিমের সদস্যদের সঙ্গে।এদিকে খুব শিগগির শেষ হয়ে যাচ্ছে নাট’কটি। গত ৪ জানুয়ারি এ নাট’কের শেষ লটের শুটিং শেষ হয়েছে। প্রিয় টিমের সঙ্গে শুটিং শেষ করে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছেন ফারিয়া-শামীম।

কারণ এই নাট’ক তাদের যেমন এনে দিয়েছে দর্শকের ভালোবাসা, তেমনি এই নাট’কের শুটিং সেটে জড়িয়ে আছে অজস্র স্মৃ’তি! শবনম ফারিয়া যখন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে যান, তখন এ নাট’কের সঙ্গে মাত্র যু’ক্ত হন। নাট’কটির শুটিং সেটে বসে বিয়ের অ’তিথিদের তালিকাও তৈরি করেন তিনি। এসব স্মৃ’তি স্ম’রণ করে ফারিয়া বলেন—ফ্যামিলি ক্রাইসিসের প্রথম লটের সেটে আমা’র বিয়ের অ’তিথিদের তালিকা বানানো হয়।

আমাদের পরিচালক মোস্তফা কামাল রাজের হাতের লেখা সুন্দর তাই, ভাইয়া কার্ডে অ’তিথিদের নাম লিখে দিয়েছিল! এ নাট’কের ঠিক শেষ লটের আগের লটের শুটিং শেষ করেই পরেরদিন ডিভোর্স সাইন করতে যাই। ডিভোর্সের পর প্রথম শুটিং করি ফ্যামিলি ক্রাইসিসের শেষ লটের। আর নাট’কটির শেষ লটের শুটিংয়ে রাজ ভাইয়ের বাবা মা’রা গেলেন!

নাট’কটির পুরো টিম একসঙ্গে নতুন বছরকে বরণ করেছিলেন। তা জানিয়ে এ অ’ভিনেত্রী বলেন—শুটিংয়ে প্রতিদিন কেউ না কেউ কাউকে উপহার দিয়েছে। বাসা থেকে রান্না করে খাবার এনেছে, ভাবা যায়? গত থার্টি ফার্স্টে আমা’র বাসার বাইরে যাওয়ার পারমিশন ছিল না। সেলিম ভাই-রোজি আপাকে বললাম, রোজি আপা আম্মুকে কল করে তাদের বাসায় থাকার পারমিশন এনে দেন। পুরো টিম একসঙ্গে নতুন বছরকে স্বাগত জানালাম!

এই নাট’কের শুটিংয়ের স্মৃ’তি কখনো ভুলতে পারবেন না ফারিয়া। এ অ’ভিনেত্রী বলেন—মনির ভাইয়ের অসংখ্য ঝাড়ি খেয়েছি (বেশিরভাগ সময় কারণে মাঝে মাঝে অকারণেও)। এমন অসংখ্য গল্প, আদর, ভালোবাসা, মান-অ’ভিমানের স্মৃ’তি নিয়ে এগিয়ে গেছে ফ্যামিলি ক্রাইসিস। কর্মক্ষেত্রে অনেক অ’ভিজ্ঞতা হয়েছে। কিন্তু এই সিরিয়ালের স্মৃ’তি কোনোদিন ভুলব না! ধন্যবাদ টিম ফ্যামিলি ক্রইসিস। পুরো টিমকে মিস করব!

Back to top button