১০ মাস পর আপাদমস্তক কালো পোশাকে ঢেকে কোথায় গেলেন ঐশ্বর্যা!

পুরোদস্তুর ‘কালি বিল্লি’! কালো লেগিংস, কালো কোট, কালো মাস্ক, কালো ওভা'রসাইজড সানগ্লাস। এমনকি, কাঁধের ব্যাগটাও কালো।করোনা আবহে ১০ মাস পর এভাবেই রাস্তায় বের হলেন ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন। তবে তার পরেও তাকে ঠিক চিনে ফেললেন ছবি শিকারিরা।

সৌজন্যে ছবিপ্রে'মী ‘স্মল বি’ অরাধ্যা।রবিবার সকালে সপরিবারে হায়দরাবাদের বিমানবন্দরে নামেন বচ্চন বহু। কালো পোশাকে ঐশ্বর্যা ছবি শিকারিদের পাশ কাটিয়ে গেলেওবাবা অ'ভিষেকের হাত ধরে আরাধ্যা কিন্তু মুহূর্তের জন্য থামেন।

ছবি শিকারিদের দেখেই রীতিমতো পোজ দেন ছবির জন্য। আর সঙ্গে সঙ্গেই ফ্রেম ব'ন্দি হন ঐশ্বর্যা-সহ বচ্চন পরিবার। এমনিতে আরাধ্যা অ'ভিষেক ঐশ্বর্যা একসঙ্গে বেড়াতে বেরোলে কালার কোড ম্যাচ করেই পোশাক পরেন। বিশেষ করে মায়ের সঙ্গে রং মিলিয়ে পোশাক পরতে ভালবাসে আরাধ্যা। কিন্তু, এদিন তিনজনেরই পোশাক ছিল আলাদা।

হয়তো ভিড়ে মিশতেই চেয়েছিলেন তিন জন। কিন্তু, আরাধ্যার জন্য তা আর হল না। গো'লাপি রঙের ট্র্যাকস্যুটের সঙ্গে ম্যাচ করে গোলাপি স্নিকার্স, গেলাপি মাস্ক, গোলাপি ফ্রেমের সানগ্লাস গো'লাপি হেয়ার ব্যান্ড পরেছিল আরাধ্যা। ছবি দেখে ঐশ্বর্যা অনুরাগীরা ‘গো'লাপি পরী’ বলে মন্তব্য করেছেন আরাধ্যাকে।

কিন্তু, হঠাৎ হায়দরাবাদে কেন ঐশ্বর্যা! দশ মাস পর বাড়ি থেকে বেড়িয়ে প্রথমেই হায়দরাবাদে কেন গেলেন তিনি! ইনস্টাগ্রামে দিয়েছেন অনুরাগীরাই। জানালেন, আগামী বেশ কয়েকদিন হায়দরবাদেই শুটিং করবেন ঐশ্বর্যা।অ'ভিষেকের পরণে ছিল ঢিলে ঢালা পাজামা আর ক্যামোফ্লাজ জ্যাকেট। দক্ষিণী পরিচালক ও প্রযোজক মণিরত্নমের তামিল ছবি ‘পন্নিইন সেলভান’-এর জন্য।

ঐতিহাসিক এই পিরিয়ড ড্রামায় ঐশ্বর্যা ছাড়াও কাজ করছেন দক্ষিণী সুপারস্টার বিক্রম। ছবির গানগু'লির সুর করেছেন এ আর রহমান। ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে মণিরত্নম পরিকল্পনা করছিলেন ছবিটি নিয়ে।

২০২০-র এপ্রিলে ঘোষণা করেন দু’টি ভাগে মুক্তি পাবে ছবিটি। করোনার জন্য এতদিন বন্ধ ছিল ছবির শুটিং। তাই বাড়ির বাইরে বেরিয়েই প্রথম কাজেই যোগ দিলেন ঐশ্বর্যা। তবে কারণ যাই হোক, ইনস্টাগ্রামে তিন বচ্চনের একসঙ্গে আসার ছবি সামনে আসতেই আনন্দে আটখানা হলেন ঐশ্বর্যা অনুরাগীরা।

Back to top button