চূড়ান্তভাবে বাতিল হলো যে শিক্ষকদের এমপিও

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে নিয়ে ফেসবুকে অ'পপ্রচার চালানোর অ'ভিযোগে দুইজন শিক্ষকের এমপিও চূড়ান্তভাবে বাতিল করা হয়েছে। এর আগে অ'ভিযু'ক্ত শিক্ষকদের এমপিও সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছিল।

এমপিও বাতিল হওয়া শিক্ষকরা হলেন, ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজের আইসিটি প্রভাষক নোমান সিদ্দীকী' (৩৫) ও ইস'লামী ইতিহাসের প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন (৪০)।মঙ্গলবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে দুই শিক্ষকের এমপিও চূড়ান্তভাবে বাতিল করার ব্যবস্থা নিতে কলেজ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, গত জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে নিয়ে ফেসবুকে অ'পপ্রচার চালানোর অ'ভিযোগে চাঁদপুর মডেল থা'নায় আইসিটি আইনে একটি মা'মলা দায়ের করা হয়। এ মা'মলায় ফরক্কাবাদ মাদ্রাসার শিক্ষক আনিসুর রহমান শরীফ (৪০), ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজের আইসিটি প্রভাষক নোমান সিদ্দীকী' (৩৫) ও ইস'লামী ইতিহাসের প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলমকে (৪০) গ্রে'প্তার করে পু'লিশ।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, অ'ভিযু'ক্ত শিক্ষকদের গ্রে'প্তার হলে বিভাগের অধীনে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বি'রুদ্ধে ওঠা অ'ভিযোগ ত'দন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরকে। অ'ভিযু'ক্ত শিক্ষকদের বি'রুদ্ধে অ'পপ্রচারের অ'ভিযোগের প্রমাণ পায় শিক্ষা অধিদপ্তর। পরে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে শিক্ষকদের এমপিও স্থাগিত করে তাদের শোকজ করার নির্দেশ দেয়া হয়ে।

সূত্র আরও জানায়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে তাদের শোকজ করা হলে প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন তার জবাব দিয়েছেন। কিন্তু তা সন্তোষজনক নয়। আর প্রভাষক নোমান সিদ্দীকী' শোকজের জবাব দেননি। এ প্রেক্ষিতে এ দুই শিক্ষকের এমপিও চূড়ান্তভাবে বাতিল করতে ফরক্কাবাদ ডিগ্রি কলেজের সভাপতিকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

Back to top button