স্কুল বন্ধ থাকায় অনলাইনে আসক্ত শি'শুরা

করো'নার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ রয়েছে সব ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এতে শিক্ষার্থীরা অ'তিমাত্রায় ঝুঁকে পড়ছে অনলাইনে। দীর্ঘদিন এ ধারা অব্যাহত থাকলে মানসিক স্বাস্থ্যও মা'রাত্মক ঝুঁ'কিতে পড়তে পারে বলে আশ'ঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, দীর্ঘ সময় স্কুল বন্ধ থাকার কারণে অনেক শি'শুর মধ্যেই আচরণগত পরিবর্তন আসছে। এমন পরিস্থিতি একদিকে যেমন শি'শুদের সঠিক মানসিক বিকাশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে অন্যদিকে নিয়মতান্ত্রিক জীবনে অনভ্যস্ত হওয়ার প্রবণতা তৈরি হতে পারে।

চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানীরা আশ'ঙ্কা প্রকাশ করে বলছেন, অনলাইন ক্লাসের কারণে শি'শুদের মোবাইল এবং ইন্টানেটের প্রতি আসক্তি আরও বাড়তে পারে।অ'ভিভাবকরা বলছেন, করো'নার কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় সারাক্ষণই বাসায় থাকছে সন্তানেরা। আসক্ত হয়ে পড়ছে মোবাইল এবং ইন্টারনেটের প্রতি। মনোযোগ হারাচ্ছে পড়াশুনার ক্ষেত্রেও।

মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এ ধরণের আচরণগত পরিবর্তন শি'শুদেরকে মহামা'রী পরবর্তী জীবনেও তাদের খাপ-খাইয়ে নিতে অ'সুবিধার সৃষ্টি করবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেও সেখানে অন্য শি'শুদের সাথে খাপ খাওয়ানো এবং শ্রেনীকক্ষে মনোযোগ বজায় রাখা ক'ষ্ট'কর হবে শি'শুদের জন্য। এমন অবস্থায় করো'না পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে শি'শুদের মানসিক এবং সামাজিক উন্নয়ন ও বিকাশে বাবা-মাকেই সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করতে হবে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মা'র্চ প্রথম করো'না রোগী শনাক্তের পর ১৭ মা'র্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ শুক্রবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরো ১৪ দিন বাড়িয়ে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে কওমি মাদ্রাসা এই ছুটির আওতায় থাকবে না।

Back to top button