স্কুল খোলার প্রস্তুতি শুরু

মহামা'রি করো'নার কারণে প্রায় ১০ মাস ধরে বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ইতোমধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েগুলো বই বিতরণের জন্য খোলা হয়েছে। শিক্ষার্থী-শিক্ষক ও অ'ভিভাবকদের আনাগোনায় মুখরিত হয়ে উঠছে শিক্ষাঙ্গন।

গত ১ জানুয়ারি থেকে সারাদেশে নতুন বই বিতরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এবার কেন্দ্রীয়ভাবে পাঠ্যপুস্তুক উৎসব না হলেও, ৩১ ডিসেম্বর ভা'র্চ্যুয়ালি বই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার পরদিন থেকে স্কুলগুলোতে বই বিতরণ শুরু করা হয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) মহাপরিচালক এ এম মনসুর আলম জানান, এভাবেই বিদ্যালয়গুলো চালু করার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। করো'না পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে আংশিকভাবে হলেও ছাত্র-ছা'ত্রীদের উপস্থিতির মাধ্যমে ক্লাস শুরু করা হবে।

মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিতে প্রতিদিন বিদ্যালয় খোলা হচ্ছে। শিক্ষকরা উপস্থিত থেকে বই বিতরণ করছেন। মাঠ কর্মক'র্তাদের এ কার্যক্রম মনিটরিং করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’অন্যদিকে ১২ দিন ধরে নতুন বছরের বই বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

এ প্রসঙ্গে মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক মো. গো'লাম ফারুক বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সব প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। সরকারি ঘোষণা এলেই সেটি বাস্তবায়ন করা হবে। বর্তমানে ১২ দিন ধরে বিতরণ কার্যক্রম চলছে।’তিনি আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা, সংক্রমণ রোধ, দূরত্ব বজায় রাখাসহ নানা ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।’

Back to top button