অনলাইনে ক্লাস, ব্যাবহারিক নিয়ে উদ্বেগে শিক্ষার্থীরা

করো'নাভাই'রাসের জেরে সারা পৃথিবী থমকে গেছে। সংক্রমণ কমাতে মাস্ক ব্যবহার, হ্যান্ডস্যানিটাইজার ব্যবহার,শা’রীরিক দূরত্ব থেকে শুরু করে লকডাউন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে।

করো'নার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার ফলে এ বছর পরীক্ষাও নিতে পারেননি স্কুল, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ভা'রতের পশ্চিমবঙ্গেও কলেজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় যে এ বছর খুলছে না এবং অন্যান্য সেমিস্টারের সঙ্গে প্রথম সেমিস্টারের ক্লাসও যে অনলাইনে হবে, উপাচার্যদের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গত রবিবারের বৈঠকে সেটা চূড়ান্ত হয়ে গেছে।

তবে শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছা'ত্রীদের প্রশ্ন, ব্যাবহারিক ক্লাস কিভাবে হবে? অনলাইনে কী' করে ব্যাবহারিক ক্লাস নেওয়া হবে, সেই প্রশ্ন শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে উপাচার্যদের বৈঠকেও উঠেছিল। তবে এই বিষয়ে আলোচনা তেমন এগোয়নি।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় অবশ্য নিজেদের মতো পন্থা বের করার চেষ্টা শুরু করেছে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় সোমবার তাদের কলেজগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে, অনলাইনে স্নাতক প্রথম সেমিস্টারের ক্লাস ১৬ ডিসেম্বর শুরু করে দিতে হবে।

বেশ কয়েকজন অধ্যক্ষ জানান, প্রথম সেমিস্টারে কোনো ব্যাবহারিক ক্লাস না-করিয়ে শুধু তত্ত্ব পড়াশোনা চালাতে হবে। অনলাইনে ক্লাস শুরু করে দেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়েও।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস জানান, তারা ডিসেম্বরের মাঝামাঝি অনলাইনে ক্লাস শুরু করে দেওয়ার কথা ভাবছেন। প্রথম সেমিস্টারের অনলাইন ক্লাসে ব্যবহারিক থাকবে না। পরের সেমিস্টারে তা করানো হবে।

যাদবপুরে বিজ্ঞান শাখায় এখন অন্তর্বর্তী সেমিস্টারের যে-সব ক্লাস চলছে, সেখানে তত্ত্বের পাশাপাশি ব্যবহারিকের জন্য নথি দেওয়া হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। ভিডিও-সম্মেলনের মাধ্যমে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

Back to top button