ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা কবে, কী'ভাবে?

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে হাতে কলমের অনেক বিষয় জ'ড়িত। এ কারণে তাদের অটোপ্রমোটেড করা সম্ভব নয়। গত ২৯ অক্টোবর ভা'র্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ডিপ্লোমা চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের অটোপাসের দাবিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এদিকে অটোপাসের দাবির প্রায় ১৫ দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাবোর্ড। এর ফলে শিক্ষার্থী ও অ'ভিভাবকদের উৎকণ্ঠা বেড়েই চলেছে।

ডিপ্লোমা শিক্ষার্থী মো. হু'মায়ূন কবীর বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘দীর্ঘ আট মাস শিক্ষাকার্যক্রমের বাইরে রয়েছি আম'রা। টেকনোলজির অনেক বিষয়ের অনলাইন ক্লাসও হচ্ছেনা। এর ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে হতাশা বাড়ছে। আমি সরকারের কাছে অবিলম্বে সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অষ্টম পর্বের শিক্ষার্থী বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমাদের ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ হয়েছে। কিন্তু মৌখিক পরীক্ষা না হওয়ার কারণে আম'রা কোনো পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছি না। এ কারণে আমাদের ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। অথচ স্বাস্থ্যবিধি মেনে মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ায় যেতো।’

তবে কারিগরি শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা যায়, ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং ২, ৪, ৬, ৮ নামে আরো একটি পরীক্ষা রয়েছে। এছাড়াও প্রায় একলাখ শিক্ষার্থীর বিভিন্ন বিষয়ে ফেল (রেফার্ড পরীক্ষা) রয়েছে। এ কারণে সিদ্ধান্ত নিতে সময় লাগছে।

রফিক উল্লাহ নামের এক অ'ভিভাবক বলেন, ‘খুলনা প্রযু'ক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট সুবিধা দিচ্ছে। এমনকি সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন গ্রামীণফোনের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সুযোগ বৃদ্ধিতে এগিয়ে এসেছে। তবে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের জন্য এখন পর্যন্ত কোনো সুযোগ সুবিধা দেখছি না। অথচ ডিপ্লোমা বা কারিগরিতে সাধারণত মধ্যবিত্ত বা নিম্নবিত্তের ছে'লে মে'য়েরা পড়তে আসে।’

আরেক অ'ভিভাভক তছলিমা বেগম বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবনের একটি মূল্য আছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় মনে হয় এটি বুঝতে পারছে না। সরকার যদি অটোপাস না দিতে পারে তবে কবে ও কোন পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেবে সে বিষয়টি পরিষ্কার করে বলুক। আমি দ্রুত কারিগরি শিক্ষাবোর্ডকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাই।’

কারিগরি ও ডিপ্লোমা পরীক্ষা কবে জানতে চাইলে কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন মোল্লা বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘এ বিষয়ে আম'রা একাধিকবার শিক্ষা সচিবের সঙ্গে আলোচনা করেছি। আগামী সোম-মঙ্গলবারে একটি সিদ্ধান্ত আসতে পারে।’

সিদ্ধান্ত স'ম্পর্কে মোরাদ হোসেন মোল্লা আরো বলেন, ‘আম'রা তিনটি রেফার্ড পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে চলেছি। এ পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হলে নিয়মিত রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম শুরু করতে পারবো। তবে সবকিছু নির্ভর করছে করো'না পরিস্থিতির ওপর।’

Back to top button