শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার আগে হচ্ছে না এইচএসসি পরীক্ষা

করো'নার ভ'য়াল থাবায় বন্ধ হওয়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে হচ্ছে না এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।

এছাড়া আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিতব্য আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির বৈঠকেও এ পাবলিক পরীক্ষার বিষয়ে নতুন কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে না বলে জানা গেছে।

এদিকে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ১১ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের বৈঠকে পরীক্ষার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসছে-এমন খবরকে ‌‘সত্য নয়’ উল্লেখ করে চেয়ারম্যানরা বলেছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে পরীক্ষা হবে না এটাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। আর এখনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।

জানা গেছে, আগামীকালের বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির প্রধান ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক। অধ্যাপক জিয়াউল হক মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেছেন, আসলে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা হবে না।

এই বৈঠক আমাদের চেয়ারম্যানদের নিয়মিত বৈঠকের একটি অংশ মাত্র। পরীক্ষা নিয়ে এখনই সিদ্ধান্ত নেয়ার মতো কোন অবস্থাই হয়নি। বিশ^ব্যপী করো'নার কারণে যে সঙ্কট এর মধ্যে আম'রাও আছি। এখন পরীক্ষা কী'ভাবে হবে?

চেয়ারম্যান জানান, নতুন সময়সূচী প্রকাশের বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। বৃহস্পতিবারের বৈঠকেও এসব বিষয় চূড়ান্ত করার জন্য নয়। এখন পর্যন্ত পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত একটাই। আর তা হচ্ছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলা পর্যন্ত কোন পরীক্ষা হচ্ছে না।

১১ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের বৈঠকে পরীক্ষার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসছে- এমন খবরে পরীক্ষার্থী ও অ'ভিভাবকদের মধ্যে কিছুটা উদ্বেগ সৃষ্টির মধ্যেই শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার অন্তত ১৫ দিন পর হতে পারে পরীক্ষা। তার আগে নয়। গত ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হলেও দেশে করো'নার প্রকোপ বাড়তে থাকায় মা'র্চের মাঝামাঝি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে আ'ট'কে যায় এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। যার ফলে এ ভাই'রাসটির কারণে স্থগিত থাকা এ পরীক্ষা কবে, কী'ভাবে নেয়া হবে তা নিয়েই সর্বত্র চলছে আলোচনা।

অন্যদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার অন্তত ১৫ দিন পর হতে পারে পরীক্ষা। আবার পরীক্ষা যখন হবে তার অন্তত ১৫ থেকে ২০ দিন আগে সময়সূচী ঘোষণা করা হবে। মানে সময়সূচী ঘোষণার পর বেশ সময় পরে পরীক্ষা হবে। কিন্তু সব কিছুই নির্ভর করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ওপর।

তাহলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিগগির খোলার চিন্তা আছে কিনা? এমন প্রশ্নে অধ্যাপক জিয়াউল তিনি বলেন, এটা আসলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত। আমা'র একার পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়। তবে এটুকু বলতে পারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে পরীক্ষা হবে না এটাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। আর এখনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও মহামা'রীর কারণে তা স্থগিত রয়েছে। কওমি মাদ্রাসা খুলে দেয়া হলেও অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা আছে।

Back to top button