চোখের পলকে কোটিপতি হয়ে গেলেন ভ্যান চালক

মাত্র ৩০ টাকাই বদলে দিয়েছে ভ্যানচালকের জীবন। পশ্চিমবঙ্গের মালদহের মা’নিকচক থা’নার নূরপুর গ্রা’মের রমজান আলি (৫০) এখন কোটিপতি। লটারির টিকিটও যে এভাবে ভাগ্য বদলে দিতে পারে তা স্বপ্নেও ভাবেননি রমজান আলি।

নুন আনতে পান্তা ফুরানো সংসারে এখন হাসির ঝিলিক। জা’না গেছে, অনেক বছর আ’গে আ’গ্রাসী গঙ্গার ভাঙনে ভিটেমাটি হারান রমজান। সংসার নিয়ে বাঁধের ধা’রে একটি ঝুপড়িতে বাস করছেন তিনি। বর্তমা’নে স্থানীয় সড়কে ম্যা’জিকভ্যান চালিয়ে প’রিবারের খ’রচ সামলান রমজান।

হঠাৎ রা’তারা’তি বদলে গেল স’বকিছু। ম্যা’জিকভ্যানের চালক থেকে এখন কোটিপতি রমজান আলি। লটারিতে প্রথম পুরস্কার জেতার প’র রীতিমতো আ’তঙ্কিত হয়ে পড়েন এই দিনমজুর।এ’লাকার দু’র্বৃত্তরা তার লটারির টিকিট কেড়ে নিতে পারে, এমন আশ’ঙ্কাও ছিল। খবর পেয় বৃহস্পতিবার রা’তেই তার বা’ড়িতে পু’লিশ প্রহরার ব্য’বস্থা করেন মা’নিকচক থা’নার ওসি কুণালকান্তি দাস। এ ঘ’টনায় নূরপুর এ’লাকায় এখন শোরগোল পড়ে গেছে।

ভা’রতের সংবাদ’মাধ্যমগুলো জা’নায়, রমজান আলি ম্যা’জিকভ্যানের চালক। তিনি প’রিবার নিয়ে নূরপুর গ্রা’মের রাস্তার ধা’রে সরকারি খাসজমিতে এক চিলতে চা’টাই, টালির ঘ’রে বস’বাস করেন। প’রিবারে স্ত্রী'’, চার ছে’লে ও দুই মেয়ে রয়েছে।

রমজান আলি ব’লেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে গাড়ি ভাড়ার সুবাদে দেড়শো টাকা বকশিস পেয়েছিলাম। সেখান থেকে ৩০ টাকা দিয়ে একটি লটারি টিকিট কে’টেছিলাম। বিকেলে সেই লটারি খে’লা ছিল। তাতে আমা’র ভাগ্য বদলে দেবে ভাবতেই পা’রিনি।

তিনি ব’লেন, নূরপুর স্ট্যান্ডে টিকিট কে’টে ছিলাম। সেখানকার দোকানদারই শোরগোল শুরু করে দেয় আমি এক কোটি টাকার প্রথম পুরস্কার পেয়েছি।ভাগ্যের চাকার বদলে খুশি রমজান আলি। নিজের বাড়ি তৈরি করার পাশাপাশি এ’লাকায় একটি স্কুল তৈরির জ’ন্য ১০ লাখ টাকা দান করবেন ব’লেও জানিয়েছেন তিনি।

Back to top button