বৃদ্ধের সাথে স্কুল ছা'ত্রীর বিয়ে–অ'তঃপর

ফরিদপুরের সদরপুরে ১২ বছরের মে'য়ের সাথে ৬০ বছর বয়সী মোহাম্মাদ ফকিরের বিয়ের ঘটনা ঘটেছে। ১২ বছরের শি'শুটি একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চ'ম শ্রেণির ছা'ত্রী। ২০ অক্টোবর গো'পনে নোটারি পাবলিক এর মাধ্যমে শি'শুটিকে বিয়ে করে ওই বৃদ্ধ।

বিয়ের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন মে'য়ের মা ফাতেমা বেগম। বাল্য বিয়ের ব্যাপারে মে'য়ের বাবা মো. হাবিব পেয়াদা বাধা দিলে তার স্ত্রী' গো'পনে বিয়ের পিঁড়িতে বসান নাবালিকা কন্যাকে। এ ঘটনায় মে'য়ের বাড়িতে

নতুন জামাই হিসেবে মোহাম্ম'দ গেলে মে'য়ের আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীরা তাকে আ'ট'ক করে। মোহাম্ম'দ ফকির সদরপুর উপজে'লার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের শৌলডুবী গ্রামের মৃ'ত কালু ফকিরের ছে'লে। বিয়ের ঘটনা ঘটে সদরপুর উপজে'লার সতেররশি গ্রামে।

খবর পেয়ে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে সদরপুর উপজে'লার ইউএনও পূরবী গোলদার মে'য়ের বাড়িতে ছুঁটে যান। পরে ইউএনও‘র নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আ'দালত বর মোহাম্ম'দ ফকির, মে'য়ের মা ফাতেমা বেগম, বিয়ের সাথে জ'ড়িত মে'য়ের নানা ও নানীকে আ'ট'ক করেন। পরে বাল্যবিয়ের দায়ে বর মোহাম্ম'দকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদ'ন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জ'রিমানা করেন। জ'রিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদ'ন্ড ভোগ করতে হবে।

অ'পরদিকে আ'দালত মে'য়ের মা ফাতেমা বেগমকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদ'ন্ড এবং মে'য়ের নানা-নানীকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদ'ণ্ড দেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও পূরবী গোলদার সাংবাদিকদের জানান, ২০১৭ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনের বিভিন্ন ধারায় এ শা’স্তি দেওয়া হয়েছে।

Back to top button