সরকারের একার পক্ষে সংকট মোকাবিলা সম্ভব নয়: নুর

বিশ্বব্যাপী করো'নাভাই'রাসের সংক্রমণের হাত থেকে দেশের জনগণকে বাঁ'চাতে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর। করো'না নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কী' ভাবছেন- এমন প্রশ্নের উত্তরে ভিপি নুরুল হক নুর এসব কথা জানান।

ভিপি নুর বলেন, করো'নাভাই'রাস একটি বৈশ্বিক বিপর্যয়। যেখানে ইউরোপ-আ'মেরিকার মতো উন্নত দেশও এ সংকট মোকাবিলায় ব্যাপক হিমশিম খাচ্ছে। সেখানে বাংলাদেশের মতো ক্ষুদ্র ও ঘনবসতিপূর্ণ একটি দেশে দলমত নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্য গঠন ছাড়া সরকারের একার পক্ষে এ সংকট মোকাবিলা সম্ভব নয়। সরকারের উচিত এখন রাজনৈতিক মতভেদ ভুলে গিয়ে দেশের মানুষের জীবন রক্ষায় সকল রাজনৈতিক সংগঠন ও ব্যক্তিদের নিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা। না হয় করো'না আউটব্রেক হলে কেউ রেহাই পাবে না।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান যে অবস্থা সে অবস্থায় মানুষদের স্বাভাবিক জীবনযাপন বিপন্ন হয়েছে। এদেশের ছয় কোটি কৃষক, শ্রমিক রয়েছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে তাদের না খেয়ে ম'রতে হবে। তাই এখনই সরকাতের উচিত এসব মানুষের কাছে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া। এক্ষেত্রে রাষ্ট্রের ফান্ড না থাকলে সকল বিত্তবান মানুষের সহায়তা নিতে হবে।

‘এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও এগিয়ে আসতে হবে। যে যার জায়গা থেকে সাহায্যের হাত বাড়ালে বাংলাদেশকে সহ'জে করো'নামুক্ত করা যাবে এবং আম'রা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারব’ বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ডাকসু ভিপি।

সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে আমা'র সংগঠন: ভিপি নুর

ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, করো'না থেকে সাধারণ মানুষের সুরক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছে ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ’। শুরু থেকেই আমাদের সংগঠন সারাদেশে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আম'রা যেহেতু সবাই ছাত্র তাই আম'রা নিজস্ব তেমন কোনো ফান্ড নেই। আম'রা বিভিন্ন জায়গা থেকে সাহায্য-সহযোগিতা নিয়ে সাধারণ মানুষের সহায়তার জন্য এগিয়ে আসছি।

‘ইতোমধ্যেই ‘ছাত্র অধিকার পরিষদ’ এর পক্ষ থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় জীবাণুনাশক স্প্রে, সচেতনতামূলক লিফলেট, মাস্ক, সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছি। বিভিন্ন এলাকায় নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ ও তেলের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী বিতরণের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।’

তবে দেশের সাম'র্থ্যবান ব্যক্তিরা যদি সাহায্যে এগিয়ে আসেন তাহলে বিশাল স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার ইচ্ছা ব্যক্ত করেন তিনি।

Back to top button