বি'স্ফো'রক স্বস্তিকা ; ‘প্রসেনজিৎ, অনুপম, যীশুরাও কী' বিছানায় শুয়ে কাজ পান?’

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ'ত্যু অনেক গুলো প্রশ্ন তুলে দিয়ে চলে গিয়েছে। নেপোটিজম নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি বলিউড পেরিয়ে টলিউডে এসে পৌঁছেছে। সম্প্রতি, অ'ভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের অ'ভিযোগে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে টলি পাড়ায়।

অ'ভিনেত্রীর মুখে উঠে এসেছে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, স্বস্তিকা, পরমব্রত-র মত বাংলা ইন্ডাস্ট্রির একাধিক জনপ্রিয় নাম। এবার সেই ইস্যুতেই জবাব ছুঁড়লেন স্বস্তিকা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় কখনই জবাব দিতে পিছপা হননি অ'ভিনেত্রী স্বস্তিকা। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, যারা একই পরিচালকের সঙ্গে অনেকগুলো কাজ করেন, তারা সবাই কী' শুয়ে কাজ পান?

শ্রীলেখা তাঁর সাম্প্রতিক ইউটিউব লাইভে দাবি একগুচ্ছ অ'ভিযোগের পাশাপাশি স্বস্তিকার নামও উল্লেখ করেছিলেন। বলেছিলেন, সৃজিতের সঙ্গে তাঁর ভালো স'ম্পর্ক থাকলেও সিনেমা'র সময় তাঁকে ডাকেননি পরিচালক। বদলে স্বস্তিকাকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে তুলে শ্রীলেখা দাবি করেন, স্বস্তিকার সঙ্গে সৃজিতের প্রে'ম ছিল, তাই ছবিতে কাজ পেয়েছেন তিনি।

এরই জবাবে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন স্বস্তিকা। সৃজিতের নাম না করে হিসেব কষে দেখিয়ে দিয়েছেন, সৃজিতের সঙ্গে কে, কটা সিনেমা করেছেন। তিনি নিজে ২ টি ছবিতে মুখ্য চরিত্রে কাজ করেছে ও একটি ছবিতে অ'তিথি শিল্পী হিসেবে কাজ করেছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বস্তিকা লিখেছেন, পরিচালকের ১৭ টা ছবির মধ্যে সৌমিক হালদার ১১টা, অনুপম রায় ৯টা, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ৭টা, যীশু সেনগুপ্ত ৭টা, অনির্বাণ ভট্টাচার্য ৬টা এবং পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ৬টা কাজ করেছেন।

এই পরিসংখ্যান দিয়ে স্বস্তিকার দাবি, ‘তারা নিশ্চয় আরও বেশি করে শুয়ে আর প্রে'ম করে কাজগুলো পেয়েছেন? এনারা তাহলে সবাই উভকামী ও সুযোগসন্ধানী?’ তাঁর মতে যু'ক্তি সবার জন্যই এক হওয়া উচিৎ। সব শেষে তিনি লিখেছেন, ‘যু'ক্তি তো সবার ক্ষেত্রেই এক হওয়া উচিৎ, তাই না? নাকি নিজের খামতি ঢাকতে স্লাটশেমিং শুধু আমাদের মত ‘কুযোগ্য’ অ'ভিনেত্রীদের করা হবে যারা একেবারেই অ'ভিনয়টা পারেনা?’

Back to top button