সুশান্তের ক্যারিয়ার গুছিয়ে দেওয়া দিশার মৃ'ত্যুও র'হস্যে ঘেরা

বিনোদন দুনিয়ার তারকাদের রোজনামচা গুছিয়ে রাখাই ছিল তার কাজ। সে কাজে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছিলেন তিনি। অল্প বয়সেই জনসংযোগের কাজে পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছিলেন দিশা সালিয়ান।

ক্যারিয়ারের শুরুতে তিনি ছিলেন পাবলিক রিলেশনস ম্যানেজার। পরে হয়ে ওঠেন সেলেব্রিটি ট্যালেন্ট ম্যানেজার। কাজ করতেন কর্নারস্টোন স্পোর্টস অ্যান্ড এন্টারটেনমেন্ট লিমিটেডে।

এই কনসালটেন্সির মালিক অ'ভিনেতা সোহেল খানের শ্যালক বান্টি সাজদেহ। অ'ভিনয় জগতের তারকাদের পাশাপাশি বহু নামী খেলায়াড়ের ট্যালেন্ট ম্যানেজারের পরিষেবা দেয় এই সংস্থা।

এই সংস্থার কর্মী হিসেবে দিশা ডিল করতেন বিনোদন জগতের তারকাদের সঙ্গে। কাজ করেছেন বরুণ শাহ, ভা'রতী সিংহ, রিয়া চক্রবর্তী এবং কিছু সময়ের জন্য ঐশ্বর্যা রাই বচ্চনের সঙ্গেও।

নিজের কাজে দক্ষ হিসেবে পরিচিতি ছিল ঝকঝকে তরুণী দিশার। ক্যারিয়ারের শুরুতে তিনি কাজ করেছিলেন সুশান্ত সিংহ রাজপুতের ম্যানেজার হিসেবে।

বলিউডের অন্দরে যাদের আনাগোনা, তারা জানেন, ইন্ডাস্ট্রিতে সুশান্তের প্রতিষ্ঠার পিছনে বিরাট অবদান রয়েছে সেলিব্রিটি ট্যালেন্ট ম্যনেজার দিশা সালিয়ানের।

কিন্তু পরে সুশান্তের ম্যানেজার হিসেবে আর দেখা যায়নি তাকে। যদিও দিশা নিজেই ছেড়েছিলেন, না কি সুশান্ত তাকে সরিয়েছিলেন, সেই বিষয়টি স্পষ্ট নয়।

গত ৮ এবং ৯ জুনের সন্ধিক্ষণে র'হস্যমৃ'ত্যু হয় দিশার। পু'লিশ সূত্রে জানা যায়, মুম্বইয়ের মালাডের একটি বহুতল থেকে পড়ে গিয়ে মৃ'ত্যু হয় তার।

বাবা মায়ের সঙ্গে দিশা থাকতেন মুম্বইয়ের দাদারে। গত ৮ জুন রাতে তিনি কয়েক জন বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে গিয়েছিলেন মালাড ওয়েস্টের একটি ফ্ল্যাটে। ফ্ল্যাটের মালিক দিশার প্রে'মিক, অ'ভিনেতা রোহন রাই।

পু'লিশের ত'দন্তে উঠে এসেছে, রাতের খাওয়াদাওয়ার পরে বন্ধুদের সঙ্গে ম'দ্যপান করেছিলেন দিশা। রাত একটা নাগাদ সুরাসক্ত অবস্থায় ১২ তলা ফ্ল্যাটের খোলা জানালা দিয়ে নীচে পড়ে যান তিনি।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পু'লিশ পৌঁছয় রাত আড়াইটে নাগাদ। সে সময় খোলা রাস্তায় র'ক্তের স্রোতে পড়েছিলেন দিশা। হাসপাতা'লে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে মৃ'ত বলে ঘোষণা করা হয়।

মে'য়ের মৃ'ত্যুতে কোনও ষড়যন্ত্র স'ন্দেহ করেননি দিশার বাবা মা। তাদের দাবি, নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে ইদানীং উদ্বিগ্ন ছিলেন দিশা। তবে রোহনের সঙ্গে মে'য়ের স'ম্পর্ক নিয়ে আ'পত্তি ছিল তাদের। কিন্তু শেষ অবধি মে'য়ের খুশির কথা ভেবে মেনে নিয়েছিলেন সেই স'ম্পর্কও। সম্মতি দিয়েছিলেন বিয়েতেও।

কিন্তু রোহন-দিশার মধ্যে নাকি টানাপড়েন চলছিল। অন্য এক অ'ভিনেত্রীর সঙ্গে রোহনের স'ম্পর্ক আছে বলে স'ন্দেহ করতেন রিয়া। পু'লিশের দাবি, ওই রাতের পার্টিতেও দুজনের মধ্যে তীব্র ঝগড়া হয়।

অ্যালকোহলের বোতল ছাড়াও ওই ফ্ল্যাট থেকে অন্যান্য নে'শাদ্রব্যের সন্ধান পায় পু'লিশ। প্রথমে ষড়যন্ত্রের অ'ভিযোগ না করলেও পরে মে'য়ের র'হস্যমৃ'ত্যুর যথাযথ ত'দন্তের আবেদন করেছেন দিশার বাবা-মা। দিশার মৃ'ত্যুর'হস্যে পু'লিশ রোহন এবং সে রাতের পার্টিতে উপস্থিত অন্যান্য বন্ধুদের জেরা করেছে।

দিশার বন্ধুবৃত্তে বলিউডের তারকাদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। তার অকালমৃ'ত্যুর পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় শোকবার্তা পোস্ট করেছিলেন বরুণ শর্মা, ভা'রতী সিংহ, রেশমী দেশাই, সৌম্য টন্ডন, নুসরত ভা'রুচা, রিচা চড্ডা এবং অবশ্যই সুশান্ত সিংহ রাজপুত।

তখন আর কে জানত, এর এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে সুশান্তের জন্যই শোকবার্তায় ভরে যাবে সোশ্যাল মিডিয়া।

দিশার মৃ'ত্যুর'হস্যের ত'দন্ত এখনও শেষ হয়নি। দুর্ঘ'টনা, না কি আত্মহ'ত্যা, মৃ'ত্যুর কারণ এখনও সুস্পষ্ট নয়। তার মধ্যেই সুশান্ত সিংহ রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উ'দ্ধার তাঁর নিজের বাড়ি থেকে। এই দুই র'হস্যমৃ'ত্যু কি শুধুই সমাপতন ? নাকি কোনও যোগসূত্র রয়েছে? ভাবাচ্ছে গোয়েন্দাদের।

Back to top button
You cannot copy content of this page