রেকর্ড করো'না আ'ক্রান্তের দিনে ঢাকার চেয়ে বেশি রোগী মা'রা গেলো যে শহরের

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামা'রি করো'নাভাই'রাসে (কোভিড-১৯) প্রা'ণ হারিয়েছেন আরও ২০ জন। ফলে ভাই'রাসটিতে আ'ক্রান্ত হয়ে মোট ৪৫২ জনের মৃ'ত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আ'ক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও এক হাজার ৮৭৩ জন। এটি একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এতে করো'নায় মোট আ'ক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩২ হাজার ৭৮ জনে।

শনিবার (২৩ মে) বেলা আড়াইটায় কোভিড-১৯ স'ম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অ'তিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, করো'নাভাই'রাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও নয় হাজার ৯৭৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে ১০ হাজার ৮৩৪টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো দুই লাখ ৩৪ হাজার ৬৭৫টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় আরও এক হাজার ৮৭৩ জনের দেহে করো'না শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট আ'ক্রান্ত হয়েছেন ৩২ হাজার ৭৮ জন। আ'ক্রান্তদের মধ্যে মা'রা গেছেন আরও ২০ জন। ফলে মৃ'তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪৫২ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হ‌য়েছেন আরও ২৯৬ জন। এ নি‌য়ে সুস্থ হ‌য়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ছয় হাজার ৪৮৬ জ‌নে।

নতুন করে যারা মা'রা গেছেন, তাদের ১৬ জন পুরুষ ও চারজন নারী। চারজন ঢাকা বিভাগের, আটজন চট্টগ্রাম বিভাগের, দুজন করে রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের এবং একজন করে সিলেট ও খুলনা বিভাগের। হাসপাতা'লে মা'রা গেছেন ১৫ জন, বাসায় চারজন এবং হাসপাতা'লে আনার পথে মা'রা গেছেন একজন। বয়সের দিক থেকে ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী দুজন, ত্রিশোর্ধ্ব তিনজন, চল্লিশোর্ধ্ব তিনজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব আটজন, ষাটোর্ধ্ব তিনজন এবং সত্তরোর্ধ্ব একজন রয়েছেন।

বুলেটিনে করো'নাভাই'রাস সংক্রমণের ঝুঁ'কি এড়াতে সবাইকে স্বাস্থ্য অধিদফতর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরাম'র্শ-নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানানো হয়।

Back to top button