ভ'য়াবহ দুঃসংবাদ করো'নার মধ্যেই পঙ্গপালের হানা

মহামা’রি করো’নাভাই’রাসের মধ্যেই নতুন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে ভা’রতে। দেশটিতে ঢুকে পড়েছে ম’রু পঙ্গপালের বিশাল ঝাঁক। এরইমধ্যে রাজস্থানের অন্তত ১৬টি জে’লায় হানা দিয়েছে।

পা'কিস্তান থেকে ভা'রতে ঢুকে পড়েছে ম'রু পঙ্গপালের বিশাল ঝাঁক। ইতোমধ্যেই রাজস্থানের অন্তত ১৬টি জে'লায় হানা দিতে শুরু করেছে তারা। শস্যহীনতা ও অনুকূল বাতাসের কারণে অঞ্চলটিতে পঙ্গপালেরা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

রাজস্থানের কৃষি কমিশনার ড. ওম প্রকাশ বলেন, ‘মাঠে কোনও ফসল নেই। শস্য বিনাশ ও স্থায়ী হওয়ার মতো জায়গা না পেয়ে খাবারের সন্ধানে পঙ্গপালের ঝাঁকগুলো দূর-দূরান্তে ছড়িয়ে পড়ছে।’

তিনি বলেন, ‘পঙ্গপালগুলো দিনদিন বির'ক্তিকর হয়ে উঠছে। রাতের বেলা নিয়ন্ত্রণ অ'ভিযানের সময় তারা ট্রাক্টরের শব্দ বা আলো দেখলেই উড়ে যাচ্ছে।’

রাজস্থানের কৃষি কমিশনার ড. ওম প্রকাশ বলেন, মাঠে কোনো ফসল নেই। শস্য বিনাশ ও স্থায়ী হওয়ার মতো জায়গা না পেয়ে খাবারের সন্ধানে পঙ্গপালের ঝাঁকগুলো দূর-দূরান্তে ছড়িয়ে পড়ছে। থবর হিন্দুস্তান টাইম ‘র।

ভা’রতের কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত পঙ্গপাল সতর্কতা সংস্থা (এলডব্লিউও) মে-জুন মাসে আবারো শস্য বিনষ্ট’কারী এ পতঙ্গের বড় হা’মলার আশ’ঙ্কা করছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, পঙ্গপাল মানব সম্প্রদায়ের জন্য চরম ক্ষতিকর একটি পতঙ্গ। এদের একেকটি ঝাঁকে লাখ থেকে কয়েক কোটি পর্যন্ত পতঙ্গ থাকতে পারে। তাদের ছোট একটি ঝাঁক মাত্র একদিনেই ৩৫ হাজার মানুষের সমান খাবার সাবাড় করে দিতে পারে।

Back to top button